কিভাবে ওয়েব ডেভলপিং করে অনলাইন থেকে ফ্রিল্যান্সিং করে সফল ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।


আসালামু আলাইকুম

বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন?

আশা করি সবাই ভালোই আছেন আর আমাদের সাইটের সাথে থাকলে ভালো থাকবেন রাজ্যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তা হল অনলাইন থেকে কিভাবে আপনি ভালো পরিমাণ ইনকাম করতে পারবেন!

আসলে অনলাইনে আপনার দক্ষতা ছাড়া আপনার কোনো মূল্যই নেই!

আপনি কোনোভাবেই ইনকাম করতে পারবেন না হয়তোবা বিভিন্ন জায়গায় গ্রামের নামে বিভিন্নভাবে প্রতারিত হবেন! কারণ অনলাইনে ইনকামের রাস্তা বলতে এই তিনটায় ছাড়া আর কোন তেমন রাস্তা নেই যেখান থেকে আপনি সত্যিকারি প্রেমেন্ট বা নিজের ক্যারিয়ার ভবিষ্যৎ চালাতে পারেন!

তো সেজন্য আপনাকে একটি অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে!
অনলাইনে আপনি যদি একটু সময় দেন এবং কিছু শিখার চেষ্টা করেন আপনি অবশ্যই সফল ভাবে অনলাইন থেকে আপনার ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন! এবং সব সময় আপনাকে মনে রাখতে হবে যে কখনো কোনো অন্যায় ভাবে কাউকে প্রতারিত না করা! কারণ প্রতারকরা কখনোই জীবনে সফল হতে পারেনা!

আপনাদের প্রথমে অনলাইনের যে বিষয়গুলোর ওপর জ্ঞান রাখতে হবে তা হলো ওয়েবসাইট তৈরি! ওয়েবসাইট তৈরি কিন্তু খুবই সহজ ডিজাইন গুলো একটু কঠিন! ওয়েবসাইট ডিজাইন করতে হলে আপনাকে কিছু কোডিং বিষয়ে জ্ঞান থাকা লাগবে! প্রথমত হলো এইচটিএমএল জাভাস্ক্রিপ্ট সিএসএস পিএইচপি! আপনি যদি কোন বিগিনার হয়ে থাকেন এবং আপনার ওয়েবসাইট বিষয়ক জ্ঞান না থাকে! তাহলে আমি আপনাকে সবসময় সাজেশন দিব যে আপনি কোন ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করেন প্রথমে যেমন ওয়াপকিজ প্রথমে ছিল ওয়াপকা যারা ওয়াপকা নিয়ে কাজ শুরু করেছিল তারা আস্তে আস্তে ডেভলপিং থেকে আজ অনেক বড় ডেভলপার এবং একজন সফল ফ্রিল্যান্সার!

তাই কোন কার্য জলদি করতে চাইবেন না!! ধীরে ধীরে কাজ শিখতে থাকুন আপনি অবশ্যই সফল হবেন!! ওয়েবসাইটের সাধারণ ডিজাইনগুলো এইচটিএমএল দিয়ে আপনি খুব সহজেই করতে পারবেন সেজন্য আপনি অনলাইনে গুগল থেকে সার্চ করে দেখে নিতে পারেন ওয়াপকিজ সাইট ডিজাইনের টিপস! আমি আপনাকে আর একটা কথা বলতে চাই যে এ ধরনের ওয়াপসাইট থেকে আপনি কখনো এক টাকা ইনকাম করতে পারবেন না ফ্রিল্যান্সিং করে! কারণ ওয়েবসাইটের অনলাইনে কোন ভ্যালু নেই!

তাই আপনাকে আস্তে আস্তে ওয়েবসাইটে একটু দক্ষ হয়ে ডিজাইনার হলে আপনি ওয়েব ডেভলপিং শুরু করতে পারেন! ওয়েব ডেভলপিং এর আবার কয়েক ধরনের ভাগ আছে! প্রথমটি হলো আপনি নিজে থেকেই সবকিছু তৈরি করে ফুল ওয়েবসাইট তৈরি করে দেবেন! এ ধরনের প্রজেক্ট খুবই কঠিন হয়ে থাকে ফ্রিল্যান্সিংয়ে!

তবে চিন্তার কোন কারণ নেই আপনি চাইলে ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে কাজ শুরু করে দিতে পারেন! ওয়াডপ্রেস থেকেও অনেক ডেভলপার তাদের ক্যারিয়ার গড়ে নিয়েছেন! WordPress একটি ওয়েবসাইট তৈরীর প্ল্যাটফর্ম আপনি চাইলে যেকোন সাইট থেকে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল দিয়ে নিতে পারেন বর্তমানে সবচাইতে জনপ্রিয় ব্যবহৃত প্ল্যাটফর্ম হল ওয়ার্ডপ্রেস! তাই আপনি চাইলে ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে কাজ শুরু করতে পারেন! এবার আসি আপনি কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবেন এবং ইনকাম করতে পারবেন! আসলে ফ্রিল্যান্সিং এ low-level ডেভলপারদের কোন মূল্য নেই!

আপনি যদি কোন কিছু না শিখে অল্থা সাধারণ কিছু শিখে ফ্রিল্যান্সিং করার চিন্তা মাথায় নিয়ে আসেন তাহলে এটা পুরোটাই মূর্খের মতো কাজ হবে! কারণ ফ্রিল্যান্সিং-এ যারা প্রজেক্ট দেয় তারা বাংলাদেশী কোন ক্লায়েন্ট না বেশিরভাগই তারা অন্যান্য দেশের যেমন আমেরিকা অস্ট্রেলিয়া সুইজারল্যান্ড রাশিয়া ইত্যাদি দেশগুলো বেশিরভাগ! তাহলে বুঝতে পারছেন যারা আপনাকে প্রজেক্টে নিবে তারা মুখ দেখে টাকা দিবে না নিশ্চয়ই! সেজন্য আপনাকে অনেক খাটনি করা লাগবে খাটনি করতে হবে!

তাছাড়া আপনি কখনো সফল হতে পারবেন না! তাই ধীরে ধীরে ওয়েবসাইট ডেভলপিং শুরু করুন এবং যখন আপনি বুঝতে পারবেন কারো কাজ করার জন্য আপনি আছেন পারফেক্ট তখন আপনি ফ্রিল্যান্সিং এ যোগ দিবেন!

তো বন্ধুরা এই ছিল আমাদের আজকের টপিক পরবর্তীতে সাথে থাকুন শিখে নিন এর!

Have any Question or Comment?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *