20% off Visit Donegrab.com, For build Mobile apps and Dream website

Day(s)

:

Hour(s)

:

Minute(s)

:

Second(s)

Shop on Donegrab

Visit ezNull forum

গুগল এডসেন্স কি ? কিভাবে কাজ করে এডসেন্স (About AdSense)

by sabbir

}

May 13, 2022


গুগল এডসেন্স কি (What is Google AdSense in Bengali) এ বিষয়ে আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে।

গুগল থেকে টাকা আয় করার সবচেয়ে সহজ এবং লাভজনক মাধ্যম হলো Google AdSense.

কারণ গুগল এডসেন্স হলো এমন একটি advertising network যেটি গুগল পরিচালনা করে থাকে।

তাছাড়া, বর্তমানে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার সবচেয়ে সহজ এবং কার্যকর উপায় হলো Google AdSense.

এ কারণে বর্তমান সময়ে ইন্টারনেটের বিষয়ে ভালো জানেন এমন প্রত্যেক লোকদের কাছেই “Google AdSense” কথাটি খুবই জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

কেননা পুরো পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ webmaster ঘরে বসে গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে অনলাইনে প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করছেন।

যেহেতু এটি গুগলের product, তাই গুগল এডসেন্স হলো অত্যন্ত বিশ্বাসী একটি advertising network যেটি বর্তমানে সকলের কাছে প্রচুর জনপ্রিয়।

এমনিতে ঘরে বসে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় আমাদের কাছে অনেক রয়েছে।

তবে এগুলোর মধ্যে অনলাইনে নিজের লেখা আর্টিকেলকে monetize করানোর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করার ক্ষেত্রে Google Adsense এর ব্যবহার প্রচুর পরিমাণে করা হয়ে থাকে।

আপনি যদি ইন্টারনেটে, সোশ্যাল মিডিয়ায় অথবা অন্য কোথাও এডসেন্স এর বিষয়ে প্রথম শুনেছেন, তাহলে “Google Adsense কি” এই বিষয়ে আপনি অবশ্যই জানতে চাইবেন।

এডসেন্স এর বিষয়ে আজকের আর্টিকেলে সম্পূর্ণ আলচনা করা হয়েছে। সেই সাথে গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় এই বিষয়ে আর্টিকেলের নিচে আমি আপনাদের বলে দিব।

তাহলে চলুন আমরা জেনে নিই Google Adsense কি, গুগল এডসেন্স কিভাবে কাজ করে এবং কিভাবে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করা যায় এসব বিষয়ে।

গুগল এডসেন্স কি ? (What is Google AdSense in Bengali)

গুগল এডসেন্স কি
গুগল এডসেন্স কাকে বলে ?

আমাদের ওয়েবসাইটের কনটেন্টকে monetize করানোর জন্য অনেক উপায় রয়েছে যেগুলোর বেশিরভাগই হলো বিভিন্ন third-party product অথবা service এর advertisements ওয়েবসাইটের ভিজিটরদের নিকট প্রদর্শন করানো।

বর্তমানে অনেক advertising program রয়েছে, যেগুলো আপনার ওয়েবসাইটকে মনিটাইজ করিয়ে ওয়েবসাইটের traffic এর মাধ্যমে ইনকাম করার সুবিধা দিয়ে থাকে।

তবে এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় advertising program হলো গুগল এডসেন্স।

গুগল এডসেন্স হলো একটি সেরা advertising network যেটি গুগলের দ্বারা পরিচালনা করা হয়।

গুগল এডসেন্স এর বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন গুলো Adsense publisher রা তাদের ওয়েবসাইট, ব্লগ কিংবা ইউটিউব চ্যানেলে দেখিয়ে থাকে এবং এর মাধ্যমে তারা টাকা আয় করে থাকে।

যে ব্যক্তির একটি website, blog অথবা youtube channel রয়েছে, সেই ব্যক্তি Google Adsense এর জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং তার ওয়েবসাইট, ব্লগ অথবা ইউটিউব চ্যানেলে এর বিজ্ঞাপন দেখানোর মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

Adsense তার publisher দের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন show করিয়ে থাকে। যেমন: text ads, images ads, video ads, interactive media ads ইত্যাদি।

এই advertising program টি ২০০৩ সালে গুগলের দ্বারা launch করা হয় এবং এটি বর্তমানে ইন্টারনেটের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সেরা এড নেটওয়ার্ক হিসেবে সকলের কাছে সুপরিচিত।

এটি webmasters অথবা site owners দের খুব বড় সুযোগ প্রদাণ করে থাকে তাদের ট্রাফিককে কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করার জন্য।

আপনি এটা জানলে অবাক হবেন যে, গুগল প্রতি বছর তার publiaher দের ১০ বিলিয়ন ডলার ($10 billion) প্রদান করে থাকে।

তাহলে অনেক সহজভাবে আমরা বলতে পারি, গুগল এডসেন্স হলো এমন একটি online earning platform যেটি আমাদের ওয়েবসাইট বা ব্লগে তার advertisements শো করিয়ে টাকা আয় করার সুবিধা দিয়ে থাকে।

আজকাল যে সকল ব্লগার (blogger) রয়েছেন, তাদের অধিকাংশই অনলাইনে আর্টিকেল লিখে ইনকাম করার ক্ষেত্রে গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে থাকেন।

এতে আর্টিকেলের ভিতরে এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন দেখানোর মাধ্যমে তারা money earning করে থাকেন।

তাই আপনার যদি একটি নিজের ব্লগ বা ওয়েবসাইট রয়েছে, তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন।

তবে এর আগে আমরা চলুন জেনে নিই কিভাবে কাজ করে গুগল এডসেন্স।

গুগল এডসেন্স কিভাবে কাজ করে ?

গুগল এডসেন্স কি এ বিষয়ে আমি উপরে আপনাদের ভালোভাবে বলে দিয়েছি। এখন আমরা জানবো “Google Adsense কিভাবে কাজ করে?”

Adsense এর কাজ করার প্রক্রিয়া খুবই simple. এজন্য আপনাকে প্রথমে গুগল এডসেন্স একাউন্ট খুলতে হবে এবং আপনার ওয়েবসাইটের head tag এর মধ্যে একটি ছোটো আকারের AdSense code placement করতে হবে।

এরপর আপনি গুগল এডসেন্স ব্যবহার করার জন্য সম্পূর্ণ ready হয়ে যাবেন।

যখন গুগল এডসেন্স আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগকে এডসেন্স ব্যবহারের জন্য অনুমোদন (approval) দেবে, তখন গুগলের তরফ থেকে আপনার ওয়েবসাইটের কনটেন্টে কিছু বিজ্ঞাপন (advertisements) দেখানো হবে এবং এই ads গুলো দেখানো হবে আপনার ওয়েবসাইটের কনটেন্টের বিষয়ের সাথে মিল রেখে।

এরপর যখন আপনার ওয়েবসাইটে আসা visitors এই advertisements গুলোর উপরে click করবে, তখন এর বিনিময়ে কিছু পরিমাণ টাকা আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে জমা হবে।

গুগল এডসেন্স হলো এমন একটি edvertising platform যেটি publishers দের তাদের ওয়েবসাইটে দেখানো বিজ্ঞাপন গুলোতে Cost Per Click (CPC) অনুযায়ী pay করে থাকে।

এর মানে হলো, আপনার ওয়েবসাইটে যত বেশি পরিমাণে unique traffic বা visitors থাকবে, তত বেশি বিজ্ঞাপন গুলোর উপর ক্লিক পড়বে এবং তত বেশি পরিমাণে টাকা আপনি গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পারবেন।

মনে রাখবেন, গুগল এডসেন্স দুইটি মাধ্যমে আমাদের টাকা দিয়ে থাকে। যেমন:

Ad Clicks: এর বিষয়ে আমি উপরে আপনাদের বলে দিয়েছি।

আপনার ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স এর দ্বারা যে বিজ্ঞাপন গুলো দেখানো হয়, সেগুলোর উপর ভিজিটররা কতবার ক্লিক করছেন তার উপর নির্ভর করে গুগল এডসেন্স আপনাকে টাকা দিয়ে থাকে।

এর সাথে জড়িত একটি বিষয় হলো CPC বা Cost Per Click.

বিজ্ঞাপন গুলোর উপর প্রতিটি ক্লিকের বিনিময়ে আপনাকে কত ডলার ($) দেওয়া হবে, সেটি বলা হয় সিপিসি।

মনে করুন, আপনার এডসেন্স একাউন্টে বর্তমানে সিপিসি রয়েছে $0.10

তাহলে আপনি প্রতিটি ads click এর জন্য $0.10 পেয়ে যাবেন এবং এটি আপনার এডসেন্স একাউন্টে জমা হয়ে যাবে।

এভাবে যখন আপনার এডসেন্স একাউন্টে $100 জমা হয়ে যাবে, তখন আপনি সেই টাকা আপনার bank account এর মাধ্যমে পেয়ে যেতে পারবেন।

তবে মনে রাখবেন, ওয়েবসাইট বা ব্লগে বিজ্ঞাপন শো করানোর জন্য আগে অবশ্যই ওয়েবসাইট বা ব্লগকে গুগল এডসেন্স এর জন্য apply করতে হবে এবং approval পেলে তবেই আপনি সাইটে এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন place করতে সক্ষম হবেন।

দ্বিতীয় যে মাধ্যমে গুগল এডসেন্স আমাদের টাকা দিয়ে থাকে, সেটি হলো Ad impressions.

Impressions: এই প্রক্রিয়াটি হলো, আপনার ওয়েবসাইটে দেখানো বিজ্ঞাপন গুলো প্রতিদিন কত পরিমাণে লোকজন দেখছেন তার উপর নির্ভর করে আপনাকে টাকা দেওয়া হবে।

এক্ষেত্রে ads view এর পরিমাণের উপর ভিত্তি করে টাকা পে করা হয় এবং এতে বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার প্রয়োজন হয় না।

গুগল এডসেন্স আমাদের প্রতি ১০০ এড ভিউস এর জন্য ১ ডলার পে করে থাকে।

তাহলে আশা করি বুঝতে পেরেছেন গুগল এডসেন্স আমাদের কোন কোন বিষয়ের উপর নির্ভর করে টাকা প্রদাণ করে থাকে।

তবে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় করার জন্য আপনার যে জিনিস গুলোর অবশ্যই প্রয়োজন হবে সেগুলো হলো,

নিজের একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ থাকতে হবে

ব্লগে প্রয়োজনীয় পরিমাণে ভালো মানের কনটেন্ট থাকতে হবে।

ব্লগে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে ট্রাফিক বা ভিজিটরস থাকতে হবে। তবে এক্ষেত্রে বেশিরভাগ ট্রাফিক organic traffic বা search engine থেকে আসা ট্রাফিক হতে হতে হবে।

মনে রাখবেন, এডসেন্স থেকে ভালো পরিমাণে ইনকাম পেতে হলে ওয়েবসাইট বা ব্লগে প্রতিদিন কমেও ১০০০ ইউনিক ভিজিটরস অবশ্যই থাকতে হবে।

ওয়েবসাইট বা ব্লগকে গুগল এডসেন্স এর দ্বারা অনুমোদন (approve) করাতে হবে।

তাহলে আপনারা জানলেন, Google AdSene থেকে আয় করার জন্য কোন কোন জিনিস গুলোর অবশ্যই প্রয়োজন।

আপনি যদি এডসেন্স এর বিষয়ে একদমই নতুন হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার কাছে এই প্রশ্নটি অবশ্যই থাকতে পারে যে, গুগল এডসেন্স কেন আমাদের টাকা দেয়?

তাছাড়া অনেকেই এই বিষয়টি ভালোভাবে জানেন না যে, গুগল এডসেন্স ব্যবহারকারীদের কেন টাকা দিয়ে থাকে এবং এতে তাদের লাভ কি? তাহলে চলুন এ বিষয়ে ভালোভাবে জেনে নিই।

কেন গুগল এডসেন্স আমাদের টাকা দিয়ে থাকে ?

গুগল এডসেন্স এর টাকা প্রদাণ করার প্রক্রিয়া এবং তারা কিভাবে আয় করে থাকে এই সম্পুর্ণ বিষয়ে বোঝার জন্য আপনাকে নিচের তথ্য গুলো ভালোভাবে পড়তে হবে।

মনে করুন, আপনার একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ রয়েছে এবং সেখানে প্রতিদিন আপনি ভালো পরিমাণে ট্রাফিক পাচ্ছেন।

তাহলে এই সকল ট্রাফিককে কাজে লাগিয়ে অর্থ উপার্জন আপনাকে অবশ্যই করতে হবে অথবা আপনি এর থেকে অর্থ উপার্জন অবশ্যই করতে চাইবেন।

যদি ওয়েবসাইটে প্রচুর ট্রাফিক থাকে এবং কোন ইনকাম করতে না পারেন, তাহলে আপনার অনেক খাটা খাটুনি করে কনটেন্ট লিখে কোন লাভ আপনি করতে পারবেন।

এর থেকে টাকা আয় করতে চাইলে আপনাকে কি করতে হবে?

অবশ্যই কোন একটি কোম্পানির বিজ্ঞাপন আপনার ওয়েবসাইটে দেখাতে হবে এবং এর মাধ্যমে সেই কোম্পনির টাকা আদায় করতে পারবেন।

কিন্তু এজন্য আপনাকে সেই কোম্পানির সাথে advertising এর বিষয়ে সরাসরি কথা বলতে হবে। এরপর যদি তারা আপনার ওয়েবসাইটে তাদের বিজ্ঞাপন দেখাতে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলেই কেবল আপনি তাদের থেকে টাকা নিতে পারবেন।

কিন্তু তারা আপনার কথায় রাজি হবে কিনা তার কোন নিশ্চয়তা নেই।

তাছাড়া এরকম ভাবে অনেক কোম্পানির সাথে কথা বলাটা একজনের কাছে অনেক কঠিন কাজ হয়ে দাঁড়ায়।

ইন্টারনেটে বিভিন্ন অডিয়েন্সের নিকট বিভিন্ন কোম্পানির প্রচার প্রচারণা চালানোর সুবিধার জন্য গুগল 23 October 2000 সালে “Google Ads” নামে একটি সেবা নিয়ে আসে।

গুগল এডস হলো এমন একটি পরিষেবা, যার মাধ্যমে বিভিন্ন ছোট অথবা বড় কোম্পানি গুলো ইন্টারনেটে তাদের product বা service অথবা brand এর প্রচারণা চালানোর জন্য ব্যবহার করে থাকে।

এজন্য এই কোম্পানি গুলো তাদের সার্ভিস এর বিজ্ঞাপন গুলো প্রচারের জন্য গুগলকে টাকা দিয়ে থাকে।

এভাবে যারা গুগল এডস এর মাধ্যমে তাদের কোম্পানির বিজ্ঞাপন প্রচারের দায়িত্ব গুগলকে দিয়ে থাকেন, তাদেরকে বলা হয়ে থাকে advertiser.

এখন গুগল তো সবার কাছ থেকে টাকার বিনিময়ে বিজ্ঞাপন নিয়ে বসে থাকবে না। তাকে সেগুলো প্রচার করতে হবে নির্ধারিত দর্শকদের সামনে।

এজন্য গুগল আরেকটি সার্ভিস চালু করে যার নাম হলো “Google AdSense

বিভিন্ন ব্লগ, ওয়েবসাইট কিংবা ইউটিউব চ্যানেলের মালিকরা গুগল এডসেন্স একাউন্ট খোলার মাধ্যমে গুগল পার্টনার প্রোগ্রামে যোগ দিয়ে থাকে।

তারা মূলত অর্থ উপার্জন করার জন্য গুগল এডসেন্স থেকে বিজ্ঞাপন নিয়ে তাদের ব্লগ কিংবা ইউটিউবে দেখিয়ে থাকে।

যারা এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে থাকে তাদেরকে বলে publisher.

এক্ষেত্রে Google Ads এর মধ্যে যেসকল advertiser রা তাদের কোম্পানি promote করার জন্য বিজ্ঞাপন প্রদান করে থাকে, এই বিজ্ঞাপন গুলোই গুগল তার এডসেন্স প্রোগ্রামের দ্বারা পাবলিশারদের মাধ্যমে লোকজনের দেখিয়ে থাকে।

তাহলে আপনারা বুঝতে পারলেন যে, গুগলের ভিন্ন ভিন্ন দুইটি প্লাটফর্ম রয়েছে গুগল এডস এবং গুগল এডসেন্স।

একটি বিভিন্ন কোম্পানির কাছ থেকে বিজ্ঞাপন সংগ্রহ করে থাকে এবং এর জন্য টাকা নিয়ে থাকে এবং অপরটি এসব বিজ্ঞাপন পাবলিশারদের মাধ্যমে দেখিয়ে থাকে এবং এজন্য গুগল পাবলিশারদের টাকা দিয়ে থাকে।

আমরা এভাবে বলতে পারি যে, গুগল এডসের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন সংগ্রহ করে গুগল এডভাইটাইজারদের কাছ যে টাকা পেয়ে থাকে, গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে সেই সব বিজ্ঞাপন প্রচার করার জন্য এডসেন্স পাবলিশারদের সেই টাকার ৬০℅ গুগল প্রদাণ করে থাকে। আর বাকি ৪০% গুগল নিজের জন্য রেখে দেয়।

এভাবেই মূলত গুগল এই দুইটি সার্ভিসের মাধ্যমে বসে বসে টাকা ইনকাম করছে।

তাহলে এখন নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন, গুগল কেন আমাদের টাকা দিয়ে থাকে?

আসলে এক্ষেত্রে একদিকে বিভিন্ন কোম্পানি গুলো গুগল এডস এর মাধ্যমে সহজে তাদের বিজ্ঞাপন দিতে পারেন এবং গুগল সহজেই টাকা আয় করতে পারেন এবং এডসেন্স ব্যবহারকারীরাও গুগলের নিকট থেকে টাকা পেতে পারেন তাদের ব্লগ, ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেলে সেসব বিজ্ঞাপন প্রচারের মাধ্যমে।

AdSense থেকে কত টাকা আয় করা যায় ?

দেখুন, গুগল এডসেন্স থেকে কত টাকা আয় করা যায় এটা সঠিকভাবে বলা যায় না।

কারণ, এডসেন্স থেকে টাকা আয় করাটা কিসের কিসের উপর নির্ভর করে সেগুলো আপনি উপরেই আপনাদের বলেছি।

আপনার ওয়েবসাইটে দৈনিক যত বেশি পরিমাণে ভিজিটরস আসবেন এবং তারা যত বেশি আপনার ওয়েবসাইটে দেখানো বিজ্ঞাপন গুলোর উপর ক্লিক করবেন এবং প্রতি এড ক্লিকে সিপিসি যত বেশি থাকবে, তত বেশি টাকা আপনার এডসেন্স একাউন্টে জমা হতে থাকবে।

তাছাড়া, গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে লোকেরা ঘরে বসে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছেন।

এছাড়া গুগল এডসেন্স থেকে মাসে সর্বোচ্চ কত টাকা আয় করা যাবে এর নির্দিষ্ট কোন সীমা নেই।

ওয়েবসাইট বা ব্লগে প্রচুর পরিমাণে ট্রাফিক থাকলে বিজ্ঞাপনে ক্লিক অবশ্যই বেশি পরিমাণে হবে এবং ইনকামও বাড়তে থাকবে।

মনে রাখবেন, এডসেন্স থেকে ইনকাম করাটা অনেকাংশে নির্ভর করে ওয়েবসাইট ট্রাফিকের উপরে। যদি high quality traffic প্রচুর পরিমাণে আপনার ওয়েবসাইটে প্রতিদিন প্রবেশ করে তাহলে এডসেন্স এর মাধ্যমে আপনার ব্লগকে মনিটাইজ করানোর মাধ্যমে ভালো পরিমাণে টাকা আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স ব্যবহারের সুবিধা

গুগল এডসেন্স অনেক বিশ্বস্ত একটি এড নেটওয়ার্ক।

এর প্রচুর পরিমাণে পাবলিশার এবং এডভারটাইজার রয়েছে। প্রায় ২০ লক্ষ মানুষ বর্তমানে এডসেন্স ব্যবহার করেন।

এখানে advertisers এবং publishers দের জন্য high lavel security দেওয়া রয়েছে। আপনার সকল প্রয়োজনীয় ডাটা গুগলের দ্বারা সবসময় ট্রাক করা হয়ে থাকে Google analytics account এর মাধ্যমে।

অনেক গুলো ads formats রয়েছে, যেগুলো আপনি ব্যবহার করতে পারেন। যেমন, আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী আপনি টেক্সট এডস, ইমেজ এডস, ভিডিও এডস এসকল এডস ব্যবহার করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা তোলার উপায় কি?

যখন আপনার গুগিল এডসেন্স একাউন্টে ১০০ ডলার জমা হয়ে যাবে, তখন গুগল নিজেই আপনার যোগ করা bank account এ টাকা পাঠয়ে দিবে।

গুগল সাধারণত প্রতি মাসের ২০ থেকে ২৩ তারিখের মধ্যে টাকা ব্যাংক একাউন্টের মধ্যে পাঠিয়ে দেয়।

এ বিষয়ে আমি আগেই একটি আর্টিকেল লিখছি, আপনারা এটি দেখে আসতে পারেন।

AdSense account খুলতে কি কি লাগে?

আপনি যদি এডসেন্স ব্যবহার করতে চাইছেন, তাহলে প্রথমেই আপনার নিজের একটি অনলাইন ব্লগ, ওয়েবসাইট অথবা একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে।

তবে আপনি যদি সহজেই গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় করতে চাচ্ছেন, তাহলে আপনি একটি অনলাইন ব্লগ তৈরি করে সেখানে কনটেন্ট লিখতে পারেন।

যেহেতু গুগল এডসেন্স হলো গুগলের একটি সার্ভিস, তাই আপনার একটি জিমেইল একাউন্টের অবশ্যই প্রয়োজন হবে।

এরপর এডসেন্স থেকে পেমেন্ট তোলার জন্য আপনার একটি ব্যাংক একাউন্ট থাকতে হবে। আপনি চাইলে অন্যের ব্যাংক একাউন্ট ব্যবহার করেও পেমেন্ট গ্রহণ করতে পারবেন।

উপরের সব জিনিস গুলো যদি আপনার কাছে রয়েছে, তাহলে আপনি সহজেই একটি গুগল এডসেন্স একাউন্ট খুলে নিতে পারেন।

নিজের সকল প্রয়োজনীয় তথ্য যেমন: নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর, ওয়েবসাইটের নাম ইত্যাদি আপনাকে অবশ্যই নির্ভুলভাবে দিতে হবে।

আমাদের শেষ কথা

তাহলে বন্ধুরা, গুগল এডসেন্স কি এবং কিভাবে কাজ করে গুগল এডসেন্স এ বিষয়ে আজকের আর্টিকেলে ভালোভাবে আলোচনা করেছি।

যদি আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লাগে তাহলে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন।

About Google Adsense in Bengali এ বিষয়ে যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট করে অবশ্যই জানিয়ে দিবেন।

Read More

Related Posts

কালার কাকে বলে? গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে কালার বিষয় জানা অত্যান্ত জরুরি

কালার কাকে বলে? গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে কালার বিষয় জানা অত্যান্ত জরুরি

আজকের এই আর্টিকেলে আমরা জানবো রঙ কাকে বলে? রং হল রঞ্জক পদার্থ। আমাদের চোখের সামনে যা কিছু দেখি সব কিছুই এক একটি রঙ। তবে একজন গ্রাফিক্স...

ব্যবসায় উদ্যোগ এর ইংরেজি কি ?

ব্যবসায় উদ্যোগ এর ইংরেজি কি ?

ব্যবসায় উদ্যোগ এর ইংরেজি কি এ বিষয়ে আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা জানতে পারবো। এমনিতে ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং এর ইংরেজি কি এ বিষয়ে আগের একটি...

Learn More

About the Author

sabbir

Join in

Leave a Comment

0 Comments

Submit a Comment